Uncategorized

ফিল্ম সমালোচনা: ‘বাহুবলী: দ্য বিগিনিং’

12309581_945016782257190_2462376339271352084_oফিল্ম সমালোচনা: ‘বাহুবলী: দ্য বিগিনিং’
মুক্তিপ্রাপ্ত হওয়ার বেশ কিছুদিন পরে দেখলাম এস. এস. রাজামৌলীর এই অনবদ্য শিল্পসৃষ্টি। ২৫০ কোটি টাকায় তৈরী হওয়া হাইফাই সিনেমাটা অনেক কারণেই মিস্ করা অনুচিত। যেমন,
১) দুর্ধর্ষ রণকৌশল: সেই ছোট্টবেলায় রামায়ণ-মহাভারতে দেখা তীর ধনুকের বালখিল্য টেলি সম্প্রসারণ তো ভুলেই যান, হলিউডি ‘ট্রয়’, ‘টেন কম্যান্ডমেন্টস’, এমনকি ‘বেনহার’-এর যুদ্ধের দৃশ্যের থেকেও বোধকরি এই সিনেমার War sequence বেশী মনোরন্ঞ্জন করেছে। অবশ্যই অবাস্তব কান্ডকারখানা দেখিয়ে, কিন্তু অবিশ্বাস্য জিনিসপত্রও বিশ্বাসযোগ্যভাবে যদি দেখানো হয় তখন তা আকর্ষণ করতে বাধ্য। কি কি কনসেপ্ট এইক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়েছে তা বলে হাটে হাঁড়ি ভাঙবনা তবে রাজমাতা শিবগামী (রামাইয়া কৃষ্ণাণ) আর বিজ্জ্বলদেব (নাসার) যেভাবে কয়েক ক্রোশ দূর থেকে দিব্যি পরিষ্কার মাহিষ্মতী ভার্সেস কিলিকিলি যুদ্ধ দেখলেন সেটা কিছুটা মহাভারতের ধৃতরাষ্ট্র-সন্ঞ্জয়ের দিব্যদৃষ্টি দিয়ে কুরুক্ষেত্র যুদ্ধ দর্শনের সমগোত্রীয়।
২) প্রভাস: দ্বৈতচরিত্রে যাকে বলে মাতিয়ে দিয়েছেন এই তেলেগু সুপারস্টার। মিডিয়াল, ফ্লেক্সর, এক্সটেনসর, অ্যান্টিরিয়র টিবিয়াল আর ট্রাপেজিয়াস পেশীর তুমুল হিন্দোল তুলে গ্রীক রূপকথার কোন বিস্মৃতপ্রায় দেবতা যেন আবির্ভূত। মহেন্দ্র বাহুবলী আর অমরেন্দ্র বাহুবলীর মধ্যে তেমন কোন চারিত্রিক বা গুণগত বৈসাদৃশ্য নেই, তাই একইরকম অভিনয় একটু পারমুটেশন + কম্বিনেশন করে ঝেঁপে দিয়েছেন বটে, কিন্তু দুর্দান্ত স্ক্রিণ প্রেজেন্স হচ্ছে তাঁর আসল আগ্নেয়াস্ত্র। এই চেহারা বানাতে নাকি বাড়িতেই বহুমূল্য জিম বানিয়ে গত কয়েক বছর ধরে নিয়মিত শরীরচর্চা করছেন, রোজ তিরিশটা ডিম খেতেন। তামান্না ভাটিয়া ভালোই করেছেন অবন্তিকার রোলে, ঐরকম দুধের মত সুন্দর ত্বক কিকরে বানিয়েছেন কে জানে। মিশরীয় রাণী ক্লিওপেট্রা শুনেছিলাম রোজ গাধার দুধে স্নান করতেন নাকি। তামান্নার milky complexion দেখলে ক্লিওপেট্রা নির্ঘাৎ লজ্জা পেয়ে গাধা ছেড়ে গরুর দুধ শুরু করতেন।
৩) রামাইয়া কৃষ্ণাণ: যখন স্কুলে পড়তাম আনন্দলোক বা নিউজপেপারে মাঝেমাঝে ওনাকে নিয়ে hot hot ছবি/আলোচনা পড়তাম। সেই শ্যামাঙ্গিনী তন্বী কখন আশ্চর্য ব্যক্তিত্বপূর্ণ এক মহিলায় পরিবর্তিত হয়ে উঠলেন বুঝিনি সত্যি। রাজমাতা শিবগামী চরিত্রে তাঁর জলদগম্ভীর রাজকীয়তা এতটাই বাঙময় যে যখনই তাঁকে স্ক্রিণে দেখাচ্ছে, আশেপাশে যেই থাকুক না কেন, এমনকি প্রভাস উপস্হিত থাকলেও চোখ বাধ্যতামূলক রামাইয়ার দিকেই চলে যাচ্ছিল।
রিলিজের পরে তিন সপ্তাহও হয়নি। এরমধ্যেই ৪৩৫ কোটি টাকার উপর ব্যবসা করে ফেলেছে বাহুবলী। ছোটখাটো কিছু গরমিল আছেই। তবে সেগুলো সহজেই উপেক্ষা করা যায় Arri Alexa XT Camera’র বিপুল নিশানা আর সাবু সিরিলের সেট ডিজাইনের আশ্চর্য রাজপ্রাসাদ দেখতে দেখতে।
Advertisements
Standard

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s